1. rashrafulofficial@gmail.com : Asraful Islam : Asraful Islam
  2. vorernews.info@gmail.com : admi2017 :
  3. allensumon19@gmail.com : allen sumon : allen sumon
  4. mehrazkhanopy159@gmail.com : Admin4 :
উফফফ বুঝলাম না,এই সাধারণ ব্যাপারটাও পুলিশ অফিসার ধরতে পারলো না - VorerNews.com

উফফফ বুঝলাম না,এই সাধারণ ব্যাপারটাও পুলিশ অফিসার ধরতে পারলো না

  • Update Time : Thursday, January 28, 2021
  • 18 Time View
আমার মনে হয় বড় সাহেব সুইসাইড করছে!
উনার সাথে হয়তো কাজের মেয়ের লটরপটর ছিল,দুতলায় দেখা করতে গিয়ে যখন দেখলো ড্রাইভার তার সম্পত্তিতে ভাগ বসাইছে তখন তা সহ্য করতে না পেরে রুমে এসে ফুলদানি দিয়ে মাথায় আঘাত করে সুইসাইড করছে!
উফফফ বুঝলাম না,এই সাধারণ ব্যাপারটাও পুলিশ অফিসার ধরতে পারলো না?
নিজের ব্যর্থতা ঢাকার জন্য পত্রিকার কাটিং দিয়ে ভুলভাল বুঝিয়ে দিছে। গল্পটাতে হাসির কোন খোরাক নেই। অত্যন্ত ভয়ানক এবং তিক্ত স্বাদের। আমার পেটের ভিতর গুলিয়ে উঠছিল বারবার। লেখককে ধন্যবাদ উনি কত সহজে বর্তমান সমাজের অধপতনের কাহিনীগুলি তুলে ধরেছেন। যারা হাসছেন তারা এখানে হিউমার কিভাবে পেলেন সেটা বুঝি নাই। এই গল্পে কে কী রিএক্ট দিচ্ছে সেটার ভিত্তিতে পাবলিকের ইমোশনাল ম্যাচুরিটির জরিপ ও করা যাবে।
সমাজের বর্তমান চিত্র!!!
১.যেদিকে ফোকাস করা উচিত সেটা ছাড়া বাকি সবই আমরা দেখতে পাই
২.আসল অপরাধীদের ছেড়ে ছোট খাটো অপরাধী নিয়ে পরে আছি
৩.কেউ কারো আপন না সবাই নিজের স্বার্থ নিয়ে পরে আছে
স্যাটায়ার অফ এ হায়েস্ট অর্ডার! ❤️
সবাই আপনার রম্যরচনা পড়তে আসে, আমি পড়তে আসি ভিন্নকিছু; যা পড়ার পরেও মাথায় রেশটা রয়ে যাবে, ভাবনার খোরাক যোগাবে। আপনার সেন্স অফ হিউমার ভালো। কিন্তু আপনার লেখার হাত তারচেয়েও ভালো। আশা রাখি, সবসময় পাবলিক ডিমান্ডের পেছনে না দৌড়ে আপনার লিখতে পারার চমৎকার এই ক্ষমতাটারও মাঝেমাঝে সদ্ব্যবহার করবেন। সাধারণ পাঠকদের মাঝেও ভাবনার উদয় ঘটাবেন। ভালোবাসা রইলো।
এই গল্পের ২য় খন্ড এখানে আপনারা পড়লেন.. এর ১ম খন্ড রয়েছে।
আসলে মৃত লোকটি শওলিনের আসল বাবা নন। সম্পত্তির লোভে তার মা লোকটিকে বিয়ে করেন। যার কারনে সবাই মনে মনে প্ল্যান করছিল কিভাবে তাকে মেরে ফেলা যায়।
কিন্তু পুলিশের চোখে কিভাবে ধোকা দেওয়া যায়? উপায় বের করা হলো ফুলদানী দিয়ে মাথায় বাড়ি দিতে হবে। মূলত বাড়িটি দিয়েছেন শায়লা রহমান নিজেই। যাতে কেউ সেটা সন্দেহ করতে না পারে।
সমসাময়িক বাস্তবতা এত সুন্দর করে পারফেক্ট প্যাকেজিং স্টাইলে ডেলিভার করতে পারে খুব কম মানুষ।
আপনি শক্তিমান লেখক।প্রত্যাশা রাখি বহুদূর যাবে
শায়লা আর সকাল দশটার কথা শুনে জামাই রাজিব আর শায়লার চটির কথা মনে পড়ে গেল, হিন্টস দিতাছি মিসেস শায়লার দুই মেয়ে জেনি জেসি,এই মাসে ছোট জামায় দেশে এসেছে…
সব গল্প একই স্কেলে বিচার করা যায় না। এটা একটা রম্য গল্প। তাই মানুষ আজগুবি বিষয় পড়ে হাসবে, কারণ মানুষের হাসিটা দুর্লভ জিনিস। তাই রম্য গল্পে হাসানোর জন্য বাস্তবতার বিকার ঘটলে কোনো দোষ নেই। যেসব লজিক্যাল ভুল মনে আমরা দেখছি, সেগুলোর ব্যাপারে আমার আপনার চেয়েও বেশি সচেতন ছিলেন লেখক।
দ্বিতীয়ত হাসির মধ্যে খুব সূক্ষ্ম ভাবে লুকানো খোঁচা। এখানে মেসেজটা হচ্ছে যে ‘মানুষ এখন বস্তুকে ভালোবাসে আর মানুষকে/সম্পর্ককে কেবল ব্যবহার করে’, কিন্তু হওয়া উচিত ছিল; ‘মানুষ বস্তু ব্যবহার করবে আর মানুষকে ভালোবাসবে’।
মানবতাকে খোঁচা মারা হয়েছে জাগানোর জন্য।
অল্প হলেও পুলিশি ব্যবস্থা কতটা হাস্যকর হয়ে উঠেছে সেটাও খোঁচা মেরে দেখানো হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category