• E-paper
  • English Version
  • মঙ্গলবার, ০৭ এপ্রিল ২০২০, ০৪:৫১ অপরাহ্ন

ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব, মুশফিকের বিরুদ্ধে কোনো প্রমাণ পায়নি আকসু!

  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২৯ অক্টোবর, ২০১৯
  • ২৩৪ বার পঠিত

ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব পেয়েও আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) দুর্নীতি দমন বিভাগকে অবগত না করায় সাকিব আল হাসানকে ১৮ মাসের জন্য নিষিদ্ধ করতে পারে আইসিসি। এই তালিকায় নাম ছিল টাইগার উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহীমেরও। তবে তার বিরুদ্ধে কোনো প্রমাণ পায়নি আকসু।

ক্রিকেট জুয়াড়িদের কবল থেকে ক্রিকেটকে রক্ষা করার জন্য আইসিসির দুর্নীতি দমন ইউনিট (আকসু) কাজ করে যাচ্ছে। আকসুর কড়া নজর রাখে- চিহ্নিত কোনো ক্রিকেট জুয়াড়ি কোনো ক্রিকেটারের সঙ্গে টেলিফোন বা অন্য উপায়ে যোগাযোগ রাখছে কি না।

যেমন সাকিবকে ২ বছর আগে আন্তর্জাতিক একটি ম্যাচে অনৈতিক প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল (প্রস্তাবটি প্রত্যাখ্যান করেছিলেন সাকিব)। তবে ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব পেয়েও আইসিসির দুর্নীতি দমন বিভাগকে অবগত করেননি সাকিব। ফলে ১৮ মাসের নিষেধাজ্ঞায় পড়তে যাচ্ছেন দেশসেরা এই ক্রিকেটার!

তারই ধারাবাহিকতায় মুশফিকুর রহীমকেও আকসুর জেরার সামনে দাঁড়াতে হয়। মুশফিকের ঘনিষ্ঠ একটি সূত্র শীর্ষস্থানীয় এক গণমাধ্যমকে জানিয়েছে, আকসু মুশফিকের কাছেও জানতে চায়- তাকেও কোনো ক্রিকেট জুয়াড়ি ফোন করেছে কি না।

মুশফিক জানান- না তিনি অমন কারও কাছ থেকে কোনো ফোন কল পাননি। আকসু তখন বাড়তি পর্যবেক্ষণের জন্য মুশফিকের মোবাইল ফোন চায়। সেই ফোনের কল লিস্ট পরীক্ষা করে। তারপর নিশ্চিত হয় মুশফিকের মোবাইলে অমন কোনো কল আসেনি।

আইসিসির নিয়ম হচ্ছে, বাজিকররা ম্যাচ পাতানোর অফার করলে জানাতে হয়। এটা গোপন করা শাস্তিযোগ্য অপরাধ। যার শাস্তি সর্বনিম্ন ছয় মাস থেকে সর্বোচ্চ পাঁচ বছর নিষিদ্ধ হওয়া।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..